বুধবার, ২৭ মে ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

যদি এই যুদ্ধে বেঁচে যাই



যদি এই যুদ্ধে বেঁচে যাই
মৃদুল মিত্র

যদি এই যুদ্ধে বেঁচে যাই,
মনের মধ্যে মস্ত একটা প্রাসাদ গড়ে তুলবো
যে প্রাসাদে পৃথিবীর সকল মা-বাবা রাখা যায়
বৃদ্ধ বয়সে যারা বৃদ্ধাশ্রমে মাথা গোঁজার ঠাঁই খুঁজতে বাধ্য হয়।

যদি এই যুদ্ধে বেঁচে যাই,
নীলনদ, আমাজন নদী কিনে নেবো
যেখানে অনায়াসে সাঁতরাতে পারে
মৎস্যকূলসহ সকল জলজ প্রাণি।

যদি এই যুদ্ধে বেঁচে যাই,
পুরোটা আমাজন অরণ্য আমার নামে লিখে নেবো
যেখানে সকল পশু-পাখির অভয়ারণ্য তৈরি করা যায়।

যদি এই যুদ্ধে বেঁচে যাই,
পারমাণবিক অস্ত্র তৈরির কারখানাগুলো ভেঙে
হাসপাতাল তৈরি করব
যাতে ধনী-গরিব নির্বিশেষে চিকিৎসা পায়।

যদি এই যুদ্ধে বেঁচে যাই,
লাস ভেগাসে ওদের জন্য আশ্রয়স্থল করে দেবো
যারা রাস্তার পাশে থাকে বছরের পর বছর
তবুও মাথার উপর জোটে না ছাদ।
বন্ধ করে দেব ওখানকার মদ কিংবা জুয়ার আসর।
সারাদিন সেখানে হবে প্রার্থনা স্রষ্টার।

যদি এই যুদ্ধে হেরেই যাই,
তবে তোমার কোলে মাথা রেখে মাগো
শেষ ঘুম, ঘুমিয়ে যেতে চাই।

কবি: উপ-পরিদর্শক, স্পেশাল ব্রাঞ্চ, বাংলাদেশ পুলিশ।