শনিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৬ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

এডিপিতে সর্বোচ্চ বরাদ্দ স্থানীয় সরকারে, সর্বনিম্ন জাতীয় সংসদে



পূবের হাওয়া ডেস্ক::
আসছে ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে মন্ত্রণালয়ভিত্তিক বরাদ্দের খসড়া চূড়ান্ত করেছে পরিকল্পনা কমিশন। ৫৮টি মন্ত্রণালয়, বিভাগ ও সংস্থার মধ্যে বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। এক্ষেত্রে সর্বোচ্চ ৩১ হাজার ১৩১ কোটি টাকা বরাদ্দ পাচ্ছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। এর পরিমাণ মোট বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) ১৫ দশমিক ১৮ শতাংশ। অন্যদিকে সর্বনি¤œ বরাদ্দ থাকছে জাতীয় সংসদ সচিবালয়ে, ৮৩ লাখ টাকা।
মঙ্গলবার (১২ মে) অনুষ্ঠিত পরিকল্পনা কমিশনের বর্ধিত সভায় ২ লাখ ৫ হাজার ১৪৪ কোটি টাকার এডিপির খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের (এনইসি) পরবর্তী বৈঠকে এটি অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হতে পারে। পরিকল্পনা কমিশন বলছে, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের অনুমতি মিললে আগামী ১৯ মে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হতে পারে।
জানতে চাইলে পরিকল্পনা সচিব মো. নূরুল আমিন বলেন, বর্ধিত সভার মাধ্যমে আগামী অর্থবছরের বাজেটের এডিপি’র খসড়া প্রস্তাব চূড়ান্ত করা হয়েছে। আশা করছি, আগামী ১৯ মে এনইসি বৈঠকে উপস্থাপন করা হবে। ওই বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন প্রধানমন্ত্রী ও এনইসি চেয়ারপারসন শেখ হাসিনা। তবে তারিখ এখনো চূড়ান্ত হয়নি।
এক প্রশ্নের জবাবে সচিব নূরুল আমিন বলেন, অর্থ বরাদ্দের ক্ষেত্রে করোনা পরিস্থিতি বিবেচনায় রাখা হয়েছে। সে হিসাবে স্বাস্থ্য ও কৃষি খাত সংশ্লি¬ষ্ট মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলোতে প্রয়োজনমতো বরাদ্দ নিশ্চিত করা হয়েছে। এনইসি বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী চাইলে এসব খাতে বরাদ্দ আরও বাড়াতে পারেন।
পরিকল্পনা কমিশন সূত্র জানায়, আগামী অর্থবছরের জন্য ২ লাখ ৫ হাজার ১৪৪ কোটি টাকার এডিপির মধ্যে সরকারের নিজস্ব তহবিল থেকে ব্যয় করা হবে ১ লাখ ৩৪ হাজার ১৪৩ কোটি টাকা। এছাড়া বৈদেশিক সহায়তা থেকে ৭০ হাজার ৫০১ কোটি ৭২ লাখ টাকা ব্যয় করা হবে।
আগামী অর্থবছরের বাজেটে সর্বোচ্চ বরাদ্দ পাচ্ছে স্থানীয় সরকার বিভাগ। তাদের জন্য বরাদ্দ থাকছে ২০ হাজার ৬৮২ কোটি ৮৮ লাখ টাকা, যা মোট এডিপি’র ১৫ দশমিক ১৮ শতাংশ। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ২৪ হাজার ৮২৫ কোটি টাকা বরাদ্দ পাচ্ছে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগ, যা মোট এডিপির ১২ দশমিক ১০ শতাংশ। তৃতীয় সর্বোচ্চ বরাদ্দ ২৪ হাজার ৮০৩ কোটি টাকা পাচ্ছে বিদ্যুৎ বিভাগ, যা মোট এডিপির ১২ দশমিক ০৯ শতাংশ।
সর্বোচ্চ বরাদ্দ পাওয়া মন্ত্রণালয় ও বিভাগের মধ্যে এরপর পর্যায়ক্রমে রয়েছে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় (১৭ হাজার ৩৮৮ কোটি ৯৪ লাখ টাকা), রেলপথ মন্ত্রণালয় (১২ হাজার ৪৯১ কোটি ৩০ লাখ টাকা), স্বাস্থ্যসেবা বিভাগ (১০ হাজার ৫৩ কোটি ৮৬ লাখ টাকা), মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা বিভাগ (৯ হাজার ৮৬৫ কোটি ২৩ লাখ টাকা), প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় (৯ হাজার ৪০৩ কোটি ৫৫ লাখ টাকা), সেতু বিভাগ (সাত হাজার ৯৭২ কোটি টাকা) এবং পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় (ছয় হাজার ২৬৯ কোটি ৪২ লাখ টাকা)।
সর্বনি¤œ বরাদ্দ যেসব মন্ত্রণালয় ও বিভাগে : ২০২০-২১ অর্থবছরের বাজেটে সর্বনি¤œ বরাদ্দ পাচ্ছে জাতীয় সংসদ সচিবালয়। তাদের জন্য বরাদ্দ থাকছে ৮৩ লাখ টাকা। দ্বিতীয় সর্বনি¤œ বরাদ্দ থাকছে লেজিসলেটিভ ও সংসদ বিষয়ক বিভাগে— ৫ কোটি ৭১ লাখ টাকা। দুইটি বরাদ্দকেই মোট এডিপির শূন্য শতাংশ হিসেবে দেখানো হয়েছে। এডিপির শূন্য দশমিক ১ শতাংশ বা ১৮ কোটি ৩৬ লাখ টাকা পাচ্ছে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।
সর্বনি¤œ বরাদ্দ পাওয়া পরবর্তী মন্ত্রণালয় ও বিভাগগুলো হলো— দুর্নীতি দমন কমিশন (২৪ কোটি ৫৬ লাখ টাকা), সরকারি কর্ম কমিশন (২৬ কোটি ৭৩ লাখ টাকা), অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগ বা ইআরডি (৫৭ কোটি ৪৮ লাখ টাকা), বাস্তবায়ন পরিবীক্ষণ ও মূল্যায়ন বিভাগ বা আইএমইডি (৯২ কোটি ৫৭ লাখ টাকা), পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় (১১৮ কোটি ৮২ লাখ টাকা), পরিসংখ্যান ও তথ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ (১২৪ কোটি ৪৬ লাখ টাকা) এবং পরিকল্পনা বিভাগ (১৫৭ কোটি ৯০ লাখ টাকা)।
অর্থ বরাদ্দে যেসব বিষয়ে গুরুত্ব: বর্ধিত সভা সূত্রে জানা গেছে, আগামী অর্থবছরের এডিপিতে অর্থ বরাদ্দের ক্ষেত্রে কয়েকটি বিষয়ে গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে রয়েছে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি, দারিদ্র্য বিমোচন, মানবসম্পদ উন্নয়ন ও কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি। আর অবশ্যম্ভাবীভাবেই করোনাভাইরাস মোকাবিলার বিষয়টিতেও গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে।
এছাড়া জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ, বৈদেশিক সাহায্যপুষ্ট, ২০২০-২১ অর্থবছরে কাজ শেষ হওয়ার জন্য নির্ধারিত এবং দ্রুত অগ্রগতি থাকা প্রকল্পগুলোর পাশাপাশি সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বের (পিপিপি) প্রকল্পগুলোতে অগ্রাধিকার দিয়ে বরাদ্দ নিশ্চিত করা হয়েছে বলে জানা গেছে।
গত মঙ্গলবার রাজধানীর শেরেবাংলা নগরের এনইসি সম্মেলন কক্ষে কমিশনের বর্ধিত সভায় এই পরিকল্পনার খসড়া চূড়ান্ত করা হয়েছে। সভা সভাপতিত্ব করেছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। বর্ধিত সভায় পরিকল্পনা সচিব মো. নূরুল আমিন, সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য (সিনিয়র সচিব) ড. শামসুল আলম, অর্থ সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার, অর্থনৈতিক সম্পর্ক বিভাগের (ইআরডি) সচিব ফাতিমা ইয়াসমিন, আইএমইডি সচিব আবুল মনসুর মো.ফয়েজ উল¬াহসহ পরিকল্পনা কমিশনে সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

  •