বুধবার, ২৭ মে ২০২০ খ্রীষ্টাব্দ | ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

কেমন আছেন করোনা ফাইটার ডা. মীরজাদী সেব্রিনা



পূবের হাওয়া ডেস্ক
প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসটি দেশে শনাক্তের আগে থেকেই এ নিয়ে নানা শঙ্কার কথা, এর থেকে বাঁচতে দেশের মানুষকে সচেতন করা এবং এ বিষয়ে নীতিনির্ধারণী সিদ্ধান্তের কথা প্রতিনিয়ত দেশবাসীর কাছে তুলে ধরছেন একজন নারী। তার নাম মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা। সরকারের রোগতত্ত¡, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউটের (আইইডিসিআর) পরিচালক সেব্রিনা নিরলসভাবে কাজ করে এসব গুরুত্বপূর্ণ বিষয় সামাল দিচ্ছেন এক হাতে।ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরার এই ভূমিকা কিন্তু এবারই প্রথম নয়। এর আগেও তাকে দেখা গেছে চিকুনগুনিয়ার সময়, জিকা ভাইরাসের আক্রমণের সময়টাতেও সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে। বিভিন্ন দুর্যোগে তিনি এগিয়ে এসেছেন সাহসের সঙ্গে, মানুষের কাছে রাষ্ট্রের প্রতিনিধি হিসেবে তুলে ধরেছেন বার্তাগুলো। সবাইকে অভয় দিয়েছেন বরাবর। তার পরিচিতি ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র। সংবাদ সম্মেলনে উপস্থাপনা ও বাচনভঙ্গির কারণে দ্রতই সবার মধ্যে পরিচিত পান তিনি।

কিন্তু স¤প্রতি তিনি আর আসছেন না সংবাদ সম্মেলনে। বিষয়টি নিয়ে জনমনে প্রশ্ন উঠেছে। অনেকে বলছেন, এখন ফ্লোরা কেমন আছেন?
এর মধ্যে মার্চের শেষ দিকে হাই ব¬াড প্রেসারের কারণে একদিন আইইডিসিআর-এ উপস্থিত থেকেও সংবাদ সম্মেলনে আসেননি মীরজাদী ফ্লোরা। আইইডিসিআর’র ৪ জন করোনায় আক্রান্তের পর এপ্রিলের দ্বিতীয় সপ্তাহে তিনি চলে যান হোম কোয়ারেন্টাইনে। হোম কোয়ারেন্টাইনে থেকেও সংবাদ সম্মেলনে যুক্ত হন। আর গণমাধ্যমের সামনে আসেননি ফ্লোরা। তবে বেশ কিছুদিন ধরে অনুপস্থিত থাকায় সবার মধ্যে প্রশ্ন তৈরি হচ্ছে, কোথায়, কীভাবে ও কেমন আছেন সেব্রিনা ফ্লোরা।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, সুস্থ, স্বাভাবিক আছেন সেব্রিনা ফ্লোরা। এপ্রিলের দ্বিতীয় সপ্তাহে কোয়ারেন্টাইনে গেলেও তার মধ্যে করোনার কোনো লক্ষণ-উপসর্গ ছিল না। ২২ এপ্রিল থেকে আবারো নিয়মিত অফিস করা শুরু করেন।
এ বিষয়ে আইইডিসিআরের প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা এ এইচ এম আলমগীর বলেন, ফ্লোরা ম্যাডাম ভালো আছেন, সুস্থ আছেন। তার পরিবারের সবাই সুস্থ আছেন। তিনি নিয়মিত অফিসও করছেন।
অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরাও জানিয়েছেন, তিনি সুস্থ আছেন। নিয়মিত অফিস করছেন।
তবে নিয়মিত সংবাদ সম্মেলন বা স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের বুলেটিনে না আসার বিষয়ে তিনি কিছু জানাননি।
এদিকে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচলক অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদও শারীরিকভাবে অসুস্থ রয়েছেন। এ কারণে তার জায়গায় ভারপ্রাপ্ত মহাপরিচালকের দায়িত্ব পালন করেছেন অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা। নিয়মিত স্বাস্থ্য বুলেটিনে কোভিড-১৯ সম্পর্কিত সার্বিক দেশের পরিস্থিতি তুলে ধরছেন তিনি।