রবিবার, ১ অগাস্ট ২০২১ খ্রীষ্টাব্দ | ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

কুলাউড়ায় চাচাতো ভাইয়ের হাতে প্রাণ গেলো সৌদি প্রবাসী শামীমের




কুলাউড়া প্রতিনিধি :::
কুলাউড়ায় জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে আপন চাচাতো ভাইদের হাতে নৃশংসভাবে খুন হলেন সৌদি আরব প্রবাসী শামীম আহমদ (৫১)।
মঙ্গলবার দুপুরে রাউৎগাঁও ইউনিয়নের মুকুন্দপুর গ্রামের এঘটনা ঘটে। তিনি গত ৭ জানুয়ারী সৌদি আরব থেকে বাড়িতে ফিরেছেন। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার দায়ে ৩ জনকে আটক করেছে পুলিশ।
পুলিশ, স্থানীয় লোকজন, নিহতের ভাই আব্দুল মান্নান ও আব্দুল মতলিব জানান, রাউৎগাঁও ইউনিয়নের মুকুন্দপুর গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের সৌদি আরব প্রবাসী শামীম আহমদের পরিবারের সাথে তাদের আপন চাচাতো ভাই সুফিয়ান আহমদের পরিবারের জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলছে দীর্ঘদিন থেকে। নিহত শামীম আহমদের বাড়ির ১০ শতক জমি জোরপূর্বক দখলে নেন সুফিয়ান আহমদ। গত ৭ জানুয়ারি শামীম আহমদ দেশে ফেরার পর নতুন করে বিরোধ দেখা দেয়। ইতোমধ্যে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধের কারণে উপজেলার কাদিপুর ইউনিয়নের হোসেনপুর গ্রামে বাড়ি বানিয়ে আলাদাভাবে বসবাস করছেন শামীম আহমদ।
এদিকে মঙ্গলবার দুপুর ১২টায় দখলকৃত জমিটি উদ্ধার করতে বাড়িতে যান শামীম আহমদ। বাড়িতে যাওয়ার পর উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়। সংঘর্ষের এক পর্যায়ে সুফিয়ান আহমদের নেতৃত্বে লাটিসোটা নিয়ে আক্রমন চালায় শামীম আহমদের উপর। ঘটনাস্থলেই মারাত্মক আহত হন শামীম আহমদ। পরিবারের লোকজন ও স্থানীয় বাসিন্দারা তাকে উদ্ধার করে কুলাউড়া হাসপাতালে নিয়ে যান। হাসপাতালের কর্তব্যরত ডাক্তার সুরভী সেন শামীম আহমদকে মৃত ঘোষণা করেন।
নিহত শামীম আহমদের ৩ ভাই, ২ বোন ও আত্মীয় স্বজনের আর্তনাদে কুলাউড়া হাসপাতালের পরিবেশ ভারী হয়ে উঠে। খবর পেয়ে কুলাউড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (তদন্ত) আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেন। পুলিশ হাসপাতাল থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মৌলভীবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে।
এদিকে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণকালে ঘটনার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে ঘটনার মুলহোতা সুফিয়ান আহমদের শ্যালক সাজু, বোন শিল্পী এবং স্ত্রী হেপি বেগমকে গ্রেফতার করেছে।
নিহত শামীম আহমদের পরিবারের লোকজন জানান, একটি চক্রের ইন্ধনে দু’টি পরিবারের মধ্যে জমির বিরোধ চলছে। ইতিপূর্বে একাধিকবার সালিশ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠক চলাকালে সুফিয়ান আহমদ বহিরাগত লোকজন নিয়ে একাধিকবার হামলা চালান। সেই ঘটনায় আব্দুল মতলিব বাদি হয়ে কুলাউড়া থানায় মামলা (নং ১৪৩/১৯) দায়ের করেন। বর্তমানে মামলাটি আদালতে বিচারাধীন রয়েছে।
ইউপি সদস্য নোমান আহমদ জানান, আমি বর্তমানে সিলেটে আছি। তাদের জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলমান আছে। আমাদের বিচারে রেখেই তারা মারামরি শুরু করে। ফলে আমরা এখন আর তাদের বিচারে যাই না। ওয়ার্ডের দীর্ঘদিনের মেম্বার হিসেবে ঘটনার সাথে জড়িতদের দৃষ্টান্তমুলক শাস্তি দাবি করছি।
রাউৎগাঁও ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আব্দুল জলিল জামাল জানান, দীর্ঘদিন থেকে দু’টি পরিবারের মধ্যে জমিজমা সংক্রান্ত বিরোধ চলে আসছে। নোমান মেম্বার তাকে সালিশ বৈঠকে নেন। সেদিন তিনি সেখানে না থাকলে যে সংঘর্ষ বেঁধেছিলো তাতে হত্যাকান্ড সংঘঠিত হতে পারতো।
এব্যাপারে কুলাউড়া থানার অফিসার ইনচার্জ বিনয় ভূষণ রায় জানান, লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মৌলভীবাজার মর্গে প্রেরণ করা হয়েছে। ঘটনার সাথে জড়িত থাকার দায়ে ৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ঘটনায় নিহতের ভাই আব্দুল মতলিব বাদি হয়ে থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন।

  •