শুক্রবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২২ খ্রীষ্টাব্দ | ১৫ মাঘ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

জামালগঞ্জে ছাত্রযুবকের স্বেচ্ছাশ্রমে মসজিদের ফ্লোর ঢালাই




জামালগঞ্জ প্রতিনিধি :::
সমস্যা, অপেক্ষা, আশ্বাসকে দূরে ঠেলে গ্রামের ছাত্র-যুবকদের স্বেচ্ছাশ্রমে নবনির্মিত মসজিদের ফ্লোর ঢালাই করা হয়েছে। এর আগে অনেক আবেদন নিবেদন করেও কোন কাজ না হওয়ায় নিজেরাই কাজে নেমে পড়েন তারা। করোনা ও ঈদ বন্ধে কলেজপড়–য়া যুববয়সী ছাত্ররা বাড়ি ফিরলে গ্রামের মসজিদের ঢালাইয়ের অর্থ সঙ্কটের কথা জানতে পারে।
সুনামগঞ্জ জেলার জামালগঞ্জ উপজেলার উত্তর ইউনিয়নের সাচনা গ্রামের ছাত্র-যুবকেরা এ কাজের উদ্যোগী হয়। পরে গ্রামের মুরব্বীদের সাথে পরামর্শ করে নবনির্মিত মসজিদটির ফ্লোর ঢালাইয়ের কাজে অংশ নেয় তারা। এর আগে গ্রামের শতাধিক বছরের পুরোনো মসজিদটি অকেজো হয়ে পড়ায় নতুন মসজিদ নির্মাণ করতে গিয়ে অর্থ সঙ্কটে পড়ে গ্রামবাসী। ছেলেরা গ্রামের মুরব্বীদের একত্রিত করে সিদ্ধান্ত নেয় তারা নিজেরাই করে দিবে ফ্লোর ঢালাইয়ের কাজ। সে মোতাবেক সবার কাছ থেকে বালি, পাথর, সিমেন্ট সংগ্রহ করে গত শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর থেকে শনিবার পর্যন্ত চলে এ কাজ।
সাচনা গ্রামের সিলেট এমসি কলেজে অধ্যয়নরত অনার্স তৃতীয় বর্ষের ছাত্র আরিফ বাদশাহর নেতৃত্বে রাজু, শাকিল আহমেদ, সোহাগ, আকাশ, খোকন, নবীন নূর, মোজাম্মেল, হুমায়ুন, অন্তর, হৃদয়, ইমন, ওয়াহিদ, সামাউন, তানিম, আকবর, লিটন, নূর মোহাম্মদ, মুবারক, আল-আমীন, শামসু ও সানিসহ অনেকে ফ্লোর ঢালাইয়ের কাজে সঙ্গী হয়।
এ ব্যাপারে সাচনা গ্রামের মুরব্বী মো. আব্দুল হান্নান জানান, দীর্ঘদিন ধরে আমাদের গ্রামের নবনির্মিত মসজিদটি অর্থ সঙ্কটের কারণে ফ্লোর ঢালাই করতে পারছিলাম না। ঈদের জামাতে এ বিষয়টি আলোচনা করলে গ্রামের ছাত্র-যুবকদের নজরে পড়ে। এরপর তারা গ্রামের সব মুরব্বীদেরকে একত্রিত করে তারা আমাদের কাছে অর্থ সহায়তা চাইলে আমরা এতে সম্মত হই। পরবর্তীতে তারা অর্থ সংগ্রহ করে এ কাজে হাত দেয়।
এ ব্যাপারে ছাত্রদের নেতৃত্বে থাকা আরিফ বাদশাহ বলেন, করোনার বন্ধে আমরা স্কুল-কলেজের ছাত্ররা এখন বাড়িতেই আছি। ঈদের জমাতে মসজিদের ফ্লোর ঢালাইয়ের বিষয়ে আলোচনা করলে আমরা সবাই মিলে মুরব্বীদের ডেকে পরামর্শ করে এই কাজে যুক্ত হই। গ্রামের মুরব্বীগণ অর্থ সহায়তার পাশাপাশি উৎসাহ দিয়ে আমাদেরকে এ কাজে যুক্ত করেছেন। আমরা স্বেচ্ছাশ্রমে এ কাজ করায় মুজুরী বাবদ প্রায় ২৫ হাজার টাকা সাশ্রয় হয়েছে।
এ ব্যাপারে সাচনা গ্রামের মসজিদের ইমাম মাওলানা মাহমুদুল হাসান বলেন, ছাত্ররা এই উদ্যোগ নেওয়াতে অতি দ্রুত মসজিদের ফ্লোর ঢালাইয়ের কাজটা সম্পন্ন হয়েছে। আমি দোয়া করি আল্লাহ তায়ালা যেন তাদেরকে নেক হায়াত দান করে সমাজের ভালো কাজ করার শক্তি দান করেন।
এ ব্যাপারে জামালগঞ্জ উত্তর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মো. রজব আলী জানান, সাচনা গ্রামের ছাত্র-যুবকদের মহৎ উদ্যোগকে আমি স্বাগত জানাই। এভাবে প্রতিটি গ্রামেই যদি ছাত্ররা একত্রিত হয়ে যেকোন কাজে এগিয়ে আসে তাহলে অনেক কিছুই করা সম্ভব হবে।

  •